ভাষান্তর : শাহরিয়ার নীল শুভ্র

যে কোনো কারণেই হোক প্রিয় ফাউন্টেন পেনটা যখনই সংরক্ষণের প্রয়োজন হয়, আমরা বাক্স বন্দী করে রেখে দিই দৃষ্টির আড়ালে। আবার প্রয়োজনে কিছুদিন বা অনেকদিন পর তা বের করি। দেখা যায় এই সংরক্ষণের পরও অনেক সময় কলম নাজুক হয়ে পড়েছে! আজকের আলোচনা ঝর্ণা কলম সংরক্ষণে কী করা উচিত-অনুচিত নিয়ে।

মিউজিয়ামে যেমন হাড়, কাপড় কিংবা পিতলের পাত্র প্রকারভেদে বিশেষভাবে সংরক্ষণ করা হয় তেমনভাবে প্রিয় কলমের উপাদানভেদে (হার্ড রাবার, সেলুলয়েড, মেটাল) ফাউন্টেন পেনের যত্ন নেয়া প্রয়োজন।

আসুন দেখি যত্নের জন্য কী কী করা যায়:

১. কলমটি ছায়াযুক্ত, শুকনো অথচ বায়ু চলাচল করতে পারে এমন জায়গায় রাখতে হবে। এর কারণ হলো সরাসরি উজ্জ্বল আলো কলমের বডির জন্য ক্ষতিকর। বিশেষ করে সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি হার্ডরাবার ও সেলুলয়েডের উপরের স্তর দ্রুত ক্ষতি করে। আদ্রতা যদি বেশি থাকে তবে সিলিকা জেল’র ছোট ছোট প্যাকেট রাখা যায়। আদ্রতা ইবোনাইট (হার্ড রাবার) এর অক্সিডেসন ত্বরান্বিত করে। বায়ু অবরুদ্ধ জায়গা সেলুলয়েড বা হার্ডরাবরের কলমের অম্লত আটকে রাখে ফলে তা ক্ষয় হয় দ্রুত।

২. কলম ভালোভাবে বিশুদ্ধ পানি দিয়ে পরিষ্কার করে শুকনো কাপড় বা টিস্যু দিয়ে শুকিয়ে তারপর সংরক্ষণ করতে হবে।

৩. ঝর্ণা কলমের জন্য তৈরি কালি ব্যবহার করুন। ক্যালিগ্রাফির কালি বা অতি ক্ষার জাতীয় পিগমেন্টেড কালি ব্যবহার না করাই উত্তম।

৪. আইড্রপারসহ যেসব কলমে সিলিকন গ্রিজ লাগে সেসব ক্ষেত্রে সঠিক পরিমাণ ও সতর্কতার সাথে ব্যবহার করা ভালো।

৫. দীর্ঘ সময় ধরে কলম সংরক্ষণ করলে মাঝে মাঝে বের করে সুতি কাপড় দিয়ে ধুলো মুছে রাখতে হবে।

কী করা উচিত নয় :

১. কলমে Wax বা মোম ব্যবহার করা যাবে না। কলমের উপরের স্তরের ক্ষতি করে মোম; বিশেষ করে ইবোনাইট আর সেলুলয়েড কলমের রং নষ্ট করে ফেলতে পারে।

২. কলমের চেম্বারে কালি থাকা অবস্থায় অনেকে তা তুলে রাখেন। কিংবা দেখা যায় কলম পরিস্কার করা হলো ঠিকই অথচ তা ঠিকমত না শুকিয়ে সংরক্ষণ করা হচ্ছে- এই দুইই ফাউন্টেন পেনের জন্য ক্ষতির কারণ।

৩. থ্রেড বা কলমের জয়েন্টে টেফলন টেপ ব্যবহার করা অনুচিত। যা সাধারণত পাইপ লাইন কিংবা পানির কলের জন্যই ব্যবহার করা হয়ে থাকে। টেফলন টেপ ব্যবহারে কলমের ব্যারেল ফেঁটে যাওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়।

৪. কখনও অ্যালকোহল কিংবা অ্যালকোহল বিদ্যমান এমন কিছু (নেইল পলিশ রিমুভার) দিয়ে কলম পরিষ্কার করা যাবে না। অ্যালকোহল ইবোনাইট বা সেলুলয়েড নষ্ট করে দিতে পারে।

৫. হার্ড রাবার এর কলম বা কলমের অংশবিশেষ কোনোভাবেই পেট্রোলিয়ামের সংস্পর্শে রাখা উচিত না।

৬. কলম লেভেলিং এর জন্য লেভেল মার্কার ব্যবহার না করা উত্তম।

৭. হার্ড রাবারের কলম পানিতে ভিজিয়ে রাখা যাবে না।

৮. সাধারণ অফসেট কাগজ কিংবা টিস্যু দিয়ে কলম জড়িয়ে রাখা যাবে না। এসব কাগজে এসিড ব্যবহার করা হয় যা কলমের ক্ষতি করে।

৯. কলম সংরক্ষণ এর জন্য সিল করা প্লাস্টিক ব্যাগ ব্যবহার না করাই ভালো।

মূল লেখা : http://www.richardspens.com/ref/care/dos_donts.htm

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *